Translate

সিরাজগঞ্জে বাল্যবিবাহ রোধ ও সঠিক জন্মনিবদ্ধন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত



শিশুবার্তা প্রতিনিধি,সিরাজগঞ্জঃ
জেলা প্রশাসন সিরাজগঞ্জের আয়োজনে ও  Unicef সহযোগিতায়  বাল্য বিবাহরোধ ও সঠিক জন্মনিবদ্ধন বিষয়ক কর্মশালা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়স্থ শহীদ শামসুদ্দীন সম্মেলন কক্ষে ২৭ নভেম্বর'১৮ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কর্মশালার সভাপতিত্ব করেন, সিরাজগঞ্জ জেলার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক জনাব কামরুন নাহার সিদ্দীকা। অনুষ্ঠন সঞ্চালনায় ছিলেন, স্হানীয় সরকার বিভাগ সিরাজগঞ্জের উপ-পরিচালক আবু নূর মোহাম্মাদ শামসুজ্জামান।

উক্ত অনুষ্ঠানে জেলাপ্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তা, প্রিন্ট ও ইলেকটনিক্স  মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, আইনজীবি,  শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তা, মহিলাবিষয়ক ও শিশুবিষয়ক  কর্মকর্তা,  জন্মনিবদ্ধন কর্মকর্তা,ইউপি'সদস্য ও কর্মকর্তা, নিকাহ-বিবাহ রেজিস্টার গন, মসজিদের ইমাম, মোয়াজ্জেন,  সুশীল সমাজের কয়েকজন ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্হিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক কামরুন নাহার সিদ্দীকা বলেন, ১৮ বছরের আগে কোন বিয়ে নয়, সকলকে এবিষয়ে নজর দিয়ে বাল্য বিবাহ রোধ করতে হবে। নোটারী পাবলিকে এগুলো কোন বিয়ে নয়, এখন থেকে মসজিদের ইমামরা আলোচনার মাধ্যমে সমাজকে সচেতন করবে এবং বাল্য বিয়ের নানা কুফল তুলে ধরতে হবে এবং সাংবাদিক, ইউপি চেয়ারম্যান,সদস্য, সুশীল সমাজ,  গ্রাম্য মাতব্বর সহ সবাইকে এগিয়ে এসে বাল্য বিবাহ বন্ধ করতে হবে।

জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব আবু জাফর বলেন, বাল্যবিবাহ  আর হতে দেয়া হবে না।যেখানে বাল্যবিবাহ হবে আমাদের কে সঠিক ভাবে তথ্য জানাবেন।

বিশিষ্ট সাংবাদিক হেলাল আহমেদ, সাংবাদিক সুকান্ত সেন ও সিরাজগঞ্জ প্রেসক্লাবে সহ-সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল হোসেন বাবু বলেন, চর ও গ্রাম এলাকার কিছু মানুষ এখনও বাল্য বিবাহ  দেয় এবং তারা নতুন নতুন কৌশল প্রয়োগ করে এ কাজ গুলো চালিয়ে যাবার চেষ্ঠা করছে এগুলো ও আমরা চিহ্নিত করছি এবং মিডিয়াতে ও তুলে ধরছি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

2 মন্তব্যসমূহ

  1. আমাদের গ্রামে এখনো ধারাবহিকভাবে বাল্যবিবাহ চলছে। গ্রামের মানুষও কোন রকম ব্যবস্থা না নিয়ে বাল্য বিবাহ দিতে সাহায্য করে। এর কি কোন পরিবর্তন দেখতে পারবো না?

    উত্তরমুছুন