Translate

রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের '১৯০ বছর পূর্তি' উৎসব অনুষ্ঠিত

মুহাম্মাদ শরিফুজ্জামান, শিশুবার্তা প্রতিনিধি, রাজশাহীঃ

তৃতীয় দফায় অনুষ্ঠানের তারিখ পেছানোর পর অবশেষে (২৫ জানুয়ারি, ২০১৯) শুক্রবার দেশের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের '১৯০ বছর পূর্তি' উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।


বেলা সাড়ে ১১ টার সময় বেলুন উড়িয়ে '১৯০ বছর পূর্তি উৎসব' অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র ও রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী এএইচএম খাইরুজ্জামান লিটন।


শুরুতেই কয়েক হাজার ছাত্রের একটি বর্ণাঢ্য র‍্যালী নগরীর মনিচত্ত্বর এলাকা থেকে শুরু করে আলুপট্টি এলাকা পর্যন্ত সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্কুলে ফিরে আসে।


অনুষ্ঠানের শুরুতে  '১৯০ বছর পূর্তি উৎসব' অনুষ্ঠানের সভাপতি ও উক্ত প্রতিষ্ঠানের মাননীয় প্রধান শিক্ষক ড. নুরজাহান বেগম উদ্বোধনী ভাষণ দেন। তিনি বলেন, 'সুন্দর দেশ গঠনে রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশের স্বাধীনতা পরবর্তী সময় থেকেই অবদান রেখে চলেছে।' তিনি আরো বলেন, 'মুজিবনগর সরকারের ত্রান ও পুর্নবাসন মন্ত্রী ও জাতীয় চার নেতা এএইচএম কামরুজ্জামান রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র ছিলেন।' সুন্দর অনুষ্ঠান উপহার দেওয়ার জন্য স্বেচ্ছাসেবকদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বক্তৃতা শেষ করেন।


এরপর মাননীয় প্রধান অথিতি, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী এএইচএম খাইরুজ্জামান লিটন সকলের উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে অনুষ্ঠানটির ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বর্তমান ছাত্রদের উদ্দেশে বলেন, 'তোমরাই জাতির ভবিষ্যৎ। তোমরাই আগামীতে বাংলাদেশ শাসন করবে। তোমরা পরিপূর্ণভাবে মানুষ হও, নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হও।' তিনি নিজের শিক্ষাজীবনের স্মৃতিচারণ করে বলেন, 'এই স্কুলের প্রতিটি জায়গায় আমার অনেক স্মৃতি রয়েছে। বসে আড্ডা দিয়েছি, বন্ধুদের সঙ্গে মারামারি করেছি। এই স্কুলে আসলেই আমার স্মৃতিগুলো মনে পড়ে।' তাঁকে অনুষ্ঠানটির প্রধান অথিতি করার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি তাঁর বক্তৃতা শেষ করেন।

এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনুসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা।


রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র ব্যান্ড তারকা মাহফুজ আনাম জেমস ও রাজশাহী-২ আসনের মাননীয় সাংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশার উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও ব্যস্ততার জন্য তারা উপস্থিত হতে পারেননি।


বিকেল ৪ টার দিকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। অত্র প্রতিষ্ঠানের সাংস্কৃতিপ্রেমী শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ধরণের গান পরিবেশন করে। আয়োজক সুত্রে জানা গেছে, অনুষ্ঠানসূচীর প্রথমদিন 'সন্ধ্যার পরে রাজশাহীর শহরের কয়েকটা লোকাল ব্যান্ড গান পরিবেশন করবে।' তিনি আরও বলেন, 'অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিন অর্থাৎ  ২৬ শে জানুয়ারি সন্ধ্যায় জনপ্রিয় ব্যান্ড 'আর্টসেল' ও 'আরবো ভাইরাস' গান পরিবেশন করবে।' অনুষ্ঠানটি সুস্থ ও সুন্দরভাবে পালন করার জন্য 'গুড লাক বলপেন', 'প্লে টাইম টয়', 'হাশেম রাইস মিলস' 'ওয়াকার ফুটওয়্যার' সহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান স্পন্সর  করেছে।


উল্লেখ্য, গত বছরের মার্চ মাসে উক্ত অনুষ্ঠানের রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়। এতে প্রায় সাড়ে চার হাজার প্রাক্তন ও দেড় হাজার বর্তমান শিক্ষার্থী রেজিস্ট্রেশন করে। অনুষ্ঠানটি সুন্দর হয়েছে বলে অধিকাংশ শিক্ষার্থী শিশুবার্তাকে জানিয়েছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ