Translate

পাথরের রাজ্য বিচনাকান্দিতে একদিন।


(একজন শিশুর ভ্রমন অভিজ্ঞতা)

নির্মল দাস মন্টুশিশু বার্তা প্রতিনিধি, সিলেটঃ

সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় অবস্থিত বিচনাকান্দি পর্যটন এলাকা। সিলেট শহর থেকে বেশখানিক দূরে এই স্পট।


প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য আর জলপাহাড়ের খেলাভূমি বিচনাকান্দি। বিচনাকান্দির এখানে-ওখান ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে পাথর আর পাথর। মনে হবে যেন একটি পাথরের রাজ্যতে আছি।বিশ্রামহীন ভাবে এই রুপময় সৌন্দর্যের সৌরভ দেখে নিমিষেই ক্লান্তি দূর হয়ে যাবে। মেঘালয়ের পাহাড় থেকে  ঝর্ণার জল দেখে মনপ্রাণ ভরে যায়।






জলধারার পানিতে নামলে মনে হয় যেন পৃথিবীর শান্তি এখানে।শুকনো মৌসুমে এখানের সৌন্দর্য চোখে পড়ে না।তবুও সৌন্দর্য্যর শেষ নেই।


আমি ও আমার বন্ধুবান্ধব গিয়েছিলাম শুকনো মৌসুমে বিচনাকান্দিতে। আমরা গিয়েছিলাম গাড়িযোগে।শুকনো মৌসুম হওয়াতে নৌকায় যেতে পারিনি,যেতে হয়েছিল গাড়িযোগে।কিন্তু বর্ষা মৌসুমে নৌকাযোগে যাওয়া যায়। দেখা যায় জলের ঝলমল খেলা।জলের এই ঢ্ল মায়াময় করে তোলে চারপাশ।


শুকনো মৌসুম হওয়া সত্তেও, অল্প

স্বচ্ছ শীতল পানির তলদেশে পাথরের পাশাপাশি নিজের শরীর দেখা যায় স্পষ্ট। অবিরাম জলপাথরের ফাঁকে ফাঁকে শুয়ে বসে সেলফি তুলতে তুলতে বেলা শেষ হয়ে গেল।


যেদিকে তাকাই শুধু পাথর আর পাথর বড়,মাঝরি,ছোট পাথর। শুধু তাই নয় রঙ্গিলা পাথর, কালো,সাদা পাথরের সমাহার।

স্পটের শেষ সীমানা পর্যন্ত শুধু পাথর আর পাহাড়। দূর থেকে দেখলে মনে মনে হয় পাহাড়ের দলগুলো আকাশের সাথে লেগে আছে। কিন্তু যতি কাছে যাই  পাহাড়গুলো আকাশ  থেকে যেন দূরে যেতে থাকে। আর পাহাড়ের গায়ে মেঘ লেগেই থাকে।


জল,পাথর, পাহাড় আর মেঘ নিয়েই বিচনাকান্দি।প্রশান্তি সৌন্দর্য্য ভোগ করতে হলে এখানে যেতেই হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ