Translate

কবিতাঃ মানবতা।।

মানবতা

 মোঃমাহিন সরকার,ঠাকুরগাঁ

(উৎসর্গ :বিশ্ব মানবাধিকার ফাউন্ডশনকে।)


দিন দিন যেন লোপ পাবার পথে হাঁটছে মানবতা।

চারিদিক দিয়ে ভেসে আসছে মানবতা হারানোর দুর্গন্ধ।

যে দুর্গন্ধের ফলে চাঁপা পড়েছে

মানবাধিকার নামক সুশব্দটিও।

চোখ যদি রাখি এ জগৎ সংসারে

দেখতে পাই হাহাকার,যন্রনা, ঘৃণা ও ব্যাথার করূন দৃশ্য।

যা দেখার কেউ নেই,শোনার কেউ নেই।

যারা মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত

তারা গোটা বুকে যন্রনার পাথার নিয়ে বলছে-

'আমরা শান্তি চাই,বাঁচতে চাই,মানবাধিকার চাই।'

এ মানবাধিকার না পেয়ে মায়ানমারে পাখির মতো গুলি খেয়ে মৃত্যু বরন করছে শত শত রোহিঙ্গা।

সর্বত্র ত্যগ শিকার করে বাংলাদেশে ছুটছে তারা।

বর্বরতা হাত পা বেঁধে দিয়েছে মানবতার।

প্রতিনিয়ত বিশ্বাস,ভালোবাসার পরাজয়  হয়ে বিজয়ী হচ্ছে ঘৃণা।

তবু নেই মানুষের মাথাব্যথা।

মানবাধিকার না পেয়ে কাঁদা মিয়া কেঁদে যায় আর শোনা মিয়া শোনে যায়।

তবু নেই মানবতার জাগরণ।

এই অমানিশার জগতে মানুষ হাঁটছে

অন্ধের ন্যায়,বোবার ন্যায়।

চোখ থাকতেও নেই চোখ,

মুখ থাকতেও নেই মুখ।

মানুষ এক নীরব দর্শক।

যার ফলে মানুষ আজ অসার্থক।

মানুষ যেদিন নীরবতা কাটিয়ে

ঘৃণা শব্দটি জলাঞ্জলি দিয়ে পৃথিবীর বুকে আনবে ভালোবাসা।

সেদিনই সার্থক হবে পৃথিবী।

সার্থক হবে মানুষ।

সকল হৃদয়ে স্থান পাবে মানবতা,

নিশ্চিত হবে মানবাধিকার।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ