Translate

রংপুরে স্বাস্থ্যসেবায় ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে Born on time প্রকল্প "

আব্দুল্লাহ বিন সিরাজ, শিশুবার্তা প্রতিনিধি, রংপুরঃ


শিশু ও মৃত্যু হার হ্রাস ও প্রজনন স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে USAID এর অর্থায়নে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ রংপুর জেলায় এপ্রিল, ২০১৬ এ Born on Time নামক Project চালু করে।


Born On Time প্রকল্পটি রংপুর জেলার ৬টি উপজেলায় (গংগাচড়া,তারাগঞ্জ, কাউনিয়া, মিঠাপুকুর, পীরগন্জ এবং পীরগাঁছা) কাজ করছে। এর দাতা সংস্থা হলো Johnson and Johnson Global Affairs CANADA.


Born On Time প্রকল্পটি রংপুর জেলার ৬টি উপজেলায় (গংগাচড়া,তারাগঞ্জ, কাউনিয়,মিঠাপুকুর,পীরগন্জ ও পীরগাঁছায়) বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের সহযোগী হিসেবে মহিলাদের গর্ভকালীন চেকআপ, নিরাপদ প্রসব, প্রসবোত্তর চেকআপ,  প্রি-টার্ম বার্থ ( ৩৭ সপ্তাহ পূর্বে সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়াকে প্রি-টার্ম বার্থ বলে।) প্রতিরোধের মাধ্যমে শিশু মৃত্যুহার কমানো, পরিবার পরিকল্পনা, বয়ঃসন্ধিকালীন ও প্রজনন স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি ইত্যাদি সেবা দিয়ে থাকে।


 Born On Time প্রকল্পের আওতায় মূলত শিশু, কিশোর-কিশোরী ও সক্ষম দম্পতিরা সেবা পেয়ে থাকে। গত কয়েক বছরে প্রকল্পটি রংপুর জেলার স্বাস্থ্যসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে। ২০১৬ সালে রংপুর জেলায় প্রাতিষ্ঠানিক Delivery ছিল ২৫-৩০% । এবং বর্তমানে তা বেড়ে ৭৫-৮০% এ দাঁড়িয়েছে। BDHS-(2014) এর তথ্যানুসারে বাংলাদেশে ১০০০ জন জীবিত সন্তান জন্ম নিলে তার মধ্যে ২৮ জন শিশু মারা যায়। এবং মাতৃমৃত্বহার প্রতি লক্ষ্যে ১৭০ জন।  SDGএর তথ্যানুসারে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশকে ২০৩০ সালের মধ্যে শিশুমৃত্বহার প্রতি হাজারে ১২ জনের নীচে এবং মাতৃমৃত্বহার প্রতি লাখে ৭০ জনের নিচে নামিয়ে আনতে হবে।  আর তা বাস্তবায়নে রংপুর জেলায় Born On Time প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে চেষ্টা করছে ।


Born On Time প্রকল্পটির ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর কৃষ্ণ চন্দ্র রায় বলেন Born On Time প্রকল্পটি চলে যাওয়ার পরও নারী,শিশু ও কিশোর -কিশোরীদের স্বাস্থ্যসেবার মান অক্ষুন্ন রাখতে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের সাথে জনগণের আরো বেশি সম্পৃক্ততা প্রয়োজন। রংপুর জেলায় প্রতিটি ইউনিয়নের শিশু, কিশোর -কিশোরীরা ও গর্ভবতী মায়েরা হাতের কাছে স্বাস্থ্যসেবা পেয়ে খুবই আনন্দিত। এছাড়াও সেবাগ্রহণকারীরা জানায় আগে একটু  সমস্যার জন্য আমাদের রংপুর মেডিকেলে যেতে হতো। এখন আমরা সহজে কম সময়ে অনেক সেবা পাচ্ছি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ