Translate

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় শ্রেণী কক্ষে ফ্যান দাবি করায় শিক্ষার্থীকে অমানুষিক নির্যাতন; হাসপাতালে ভর্তি


আজমির তরু, শিশু বার্তা প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ:
ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার স্কুল পরিদর্শনকালীন কর্মকর্তার নিকট একটি সিলিং ফ্যান দাবি করায় বেদম প্রহারের শিকার হয়েছে এক স্কুল ছাত্র। উপজেলা রয়েড়া দাখিল মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটেছে। জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ইসরাইল হোসেন প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে যান। ক্লাস পরিদর্শনের সময় ৫ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্র পারভেজ হোসেন শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে ক্লাস রুমের জন্য একটি ফ্যান দাবি করে।

স্কুল পরিদর্শন শেষে শিক্ষা কর্মকর্তা বিদ্যালয় ত্যাগ করতে না করতেই সহকারী সুপার লিয়াকত হোসেন দরজা বন্ধ করে পারভেজকে বেদম মারপিট করে।

এঘটনায় একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, স্কুল পরিদর্শনকালীন শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট ফ্যানের আবেদন করায় পারভেজ মারপিটের শিকার হয়েছে।
শৈলকুপা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন পারভেজের মা পারুলা খাতুন জানান, তার ছেলে ক্লাস রুমের জন্য মৌখিকভাবে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট সিলিং ফ্যানের দাবি করে। সে কিছুটা চঞ্চল প্রকৃতির হলেও অভদ্র নয় এবং অন্যায় করে না বলে দাবি করেছেন। এছাড়াও ওই শিক্ষকের কঠোর শাস্তির দাবি জানান।

এ ব্যাপারে স্কুল সুপার কামাল উদ্দীন মুঠো ফোনে জানান, বিষয়টি দুঃখজনক, তিনি তিনদিনের ছুটিতে ঢাকায় অবস্থান করছেন। অপরদিকে, অভিযুক্ত শিক্ষকের মুঠো ফোন বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য