Translate

শিশুদের নিয়ে গণমাধ্যমে কাজ করায় ইউনিসেফ এর মীনা মিডিয়া এ্যাওয়ার্ড পেলেন শিশু বার্তা’র সম্পাদক


স্টাফ রিপোর্টারঃ
দেশের জনপ্রিয় শিশুতোষ সংবাদ মাধ্যম শিশু বার্তার প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক  দ্বীন মোহাম্মাদ সাব্বির। গত ২৭/১০/২০১৯ ইং  জাতিসংঘ শিশু তহবিল ইউনিসেফ এর ১৫ তম মীনা মিডিয়া এওয়ার্ড ২০১৯ এর প্রিন্ট ও অনলাইন ক্যাটাগরির নিউজ রিপোর্ট এ সেরা শিশু সাংবাদিক সম্মাননা মীনা মিডিয়া এওয়ার্ডে সম্মানিত হয়েছেবাংলাদেশের ইতিহাসে সিরাজগঞ্জে সন্তান হিসেবে এই প্রথম কেউ এই মীনা মিডিয়া এওয়ার্ড এ সম্মানিত হয়েছেন।তার এই অর্জনে শুভেচ্ছা প্রকাশ করেছেন সিরাজগঞ্জের সমাজসেবক, গণমাধ্যম কর্মীসহ জেলার বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষগতকাল ২৭ অক্টোবর রাজধানীর কাওরান বাজারে অবস্থিত হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁ তে একটি বর্ণাঢ্য আয়জনের মধ্যদিয়ে এই এওয়ার্ড প্রদান করা হয়। এ বছর মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ডেপুরস্কার জিতেছে শিশু সাংবাদিকতাসহ সারাদেশের ৪৫ জন মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিসেফ বাংলাদেশের শুভেচ্ছাদূত জাদুকর জুয়েল আইচ, অভিনেত্রী আরিফা জামান মৌসুমি, ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসান এবং ইউনিসেফ বাংলাদেশ এর মুখপাত্র তোমো হোজুমি, সঞ্চালনা করেন ইউনিসেফ বাংলাদেশ এর কমিউনিকেশন ম্যানেজার শাকিল ফয়জুল্লাহ

সাব্বিরের এই অর্জনে আনন্দের বন্যা বইছে নিজ পরিবার,বন্ধু মহল ও তার নিজ জেলা সিরাজগঞ্জেও। তার এই অর্জন এ সাব্বিরের শুভাকাঙ্ক্ষীবৃন্দ জানায়,তিনি ছোটবেলা থেকে সৃজনশীল কাজের প্রতি ছিল ভীষণ কৌতূহল  তার এই অর্জন তার সকল মঙ্গলময় কাজে আরও উৎসাহ জাগাবে। 

শিশু সাংবাদিক দ্বীন মোহাম্মাদ সাব্বির একটি মধ্যবিত্ত শিক্ষিত পরিবার থেকে উঠে আসা একজন ছেলে। পরিবারের ২ সন্তানের মধ্যে সাব্বির প্রথম সন্তান। বাবা মোঃ বেল্লাল হোসেন বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর মিলিটারিং ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিস এর উপ-বিগাভীয় কর্মকর্তা। মা ডাঃ আমিনা ইয়াসমিন হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক। ছোট বোন জান্নাতুল শিফা আদ্রিতা ৩য় শ্রেনীতে লেখাপড়া করছে। ছোট বেলা থেকে লেখাপড়ার পাশাপাশি সহ শিক্ষা কার্যক্রমের প্রতি তার ছিল প্রচুর আগ্রহ। ২০১২ সালে সিরাজগঞ্জ সবুজ কানন স্কুল এন্ড কলেজ থেকে পিএসসি, বিএল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০১৫ সালে জে.এস.সি ও ২০১৮ সালে এসএসসি সম্পন্ন করেন । বর্তমানে বি এ এফ শাহীন কলেজ এ দ্বাদশ শ্রেনীতে অধ্যয়ন করছে।
সাব্বির বলেন, ছোট বেলায় গল্প-কবিতা ও কলাম লেখার মাধ্যমে সাংবাদ পত্রের সাথে তৈরি হয় আত্নীক সম্পর্ক। বড় মামা সিনিওর সাংবাদিক ও দৈনিক দৃষ্টি প্রতিদিন পত্রিকার প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক এস এম আমিনুল মোমিন এর কাজে উৎসাহী হয়ে সাংবাদিকতায় ঝোক বেড়ে যায় তার। এরপর লেখালেখি করতে থাকলে কাকতালিয়ভাবে পরিচয় হয় দৈনিক কলম সৈনিকের বার্তা সম্পাদক সাংবাদিক ইউসুফ দেওয়ান রাজু সাথে।তার উৎসাহ ও অনুপ্রেরয় লেখার প্রতি আরও আগ্রহ বেড়ে যায় তার তিনি আরও বলেন, দিনে দিনে দৈনিক কলম সৈনিক আমার প্রকাশনার ও প্রতিভা বিকাশের অভয় আশ্রম হয়ে যায় এরপর একদিন শিশু সাংবাদিকতার বিশ্বের শিশু সাংবাদিকতায় প্রথম বাংলা সংবাদ মাধ্যম ইউনিসেফ এর হ্যালো বিডিনিউজ ২৪ এ সাংবাদিকতার সুযোগ পায়কাজের সাথে তার কোন আপোষ ছিল না। নিজের সকল কাজের প্রতি সচেষ্ট থাকার চেষ্টা করতেন তিনি। আত্নবিশ্বাস কাজের প্রতি দৃঢ় সম্মান তার এই অর্জনের মূলে এমনটিই মনে করছেন সকলে।
এর পর থেকে সমাজ সংস্কার, শিশু অধিকার  বিষয়ক ও শিশু বান্ধব বেশ কয়েকটি জাতীয় সংগঠনে  যুক্ত হয়ে কাজ করছেন তিনি।বিএনসিপি সিরাজগঞ্জ প্রাদেশিক পরিষদের মুখ্যমন্ত্রী তিনি  ন্যাশনাল চিল্ড্রেন’স টাস্ক ফোর্স এর সিরাজগঞ্জ জেলার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ন্যাশনাল চাইল্ড জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (এন সি জে এ বি) কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন এবং ইয়ুথ প্লাটফর্ম ফর জেন্ডার জাস্টিস বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির সোস্যালএফেয়ার এন্ড মিডিয়া সেক্রেটারির দায়িত্বে আছেন তিনি এছাড়াও জাতিসংঘ শিশু তহবিল ইউনিসেফ বাংলাদেশ এর গ্লোবাল ভলেন্টিয়ার হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে
দ্বীন মোহাম্মদ সাব্বির বলেন, শিশুদের নিয়ে কাজ করতে আমি ২০১৭ সালে শিশুদের নিয়ে কাজ করি নিজের দু’চোখের স্বপ্ন ও লক্ষ একটি শিশু বান্ধব বাংলাদেশ বিনির্মাণ করা । সে স্বপ্ন থেকে আমি শিশু অধিকার সংগঠন গুলোতে কাজ করি এবং শিশুদের না বলা কথা গুলো মিডিয়াতে প্রচার করি আমি বিশ্বাস করি শিশুদের জীবনে আলো ফোটাতে পারলে বাংলাদেশ একদিন আলোর মুখ দেখবে। পিছিয়ে পরা শিশুদের জীবনে পরিবর্তন আনতে পারলে তারা পাবে সুন্দর একটি ভবিষ্যৎ  সাথে সাথে তারা দেশের বোঝা না হয়ে দেশের সম্পদে পরিনত হবে। আর এখান  থেকে উৎসাহ নিয়ে আগামীতে শিশু বান্ধব বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে যাব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ