Translate

বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট বহাল রাখার দাবিতে রাস্তায় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে পরীক্ষা দিয়ে বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট বহাল রাখার দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) রাজধানীর শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। 

এ কর্মসূচিতে নটরডেম কলেজ, ঢাকা কলেজ, সরকারী বিজ্ঞান কলেজ, নরসিংদী সরকারী কলেজসহ বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
তাদের অন্যান্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- প্রতিটি ইউনিটের (বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক) পরীক্ষায় বাংলা, ইংরেজি এবং সাধারণ জ্ঞান রাখা এবং মানবিক বিভাগের পরীক্ষায় তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির (আইসিটি) পরিবর্তে সাধারণ জ্ঞান রাখা অথবা আইসিটির সঙ্গে সাধারণ জ্ঞান যোগ করা।
সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, ১৯ টি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় ইউজিসি একটি চরম সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা যারা বিভাগ পরিবর্তনের জন্য অনেক আগে থেকে বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ জ্ঞান পড়ে এসেছি, গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় এই বিভাগ পরিবর্তন ইউনিটটি রাখা হয়নি। যা আমাদের জন্য আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। দেড় বছর ধরে যে শিক্ষার্থী বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান পড়েছে তার দ্বারা অন্য ইউনিটে পরীক্ষা দেয়া সম্ভব নয়। যদি আমরা দেড় বছর ধরে সাইন্স বা কমার্সের বিষয়ে পড়তাম তাহলে আত্মবিশ্বাস করে বলতে পারতাম যে আমরা চান্স পাবো।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ভর্তি পরীক্ষায় ‘ঘ’ ইউনিট রাখছে না, কিন্তু তারা সেটা এক বছর আগে বলে দিয়েছে। আপনারা সেটা বলতে পারতেন।
বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট থাকার ঘোষণা দিয়ে শেষ মুহূর্তে একটি অমানবিক সিদ্ধান্ত তাদের উপর চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে অভিযোগ করে শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করার পর এই মুহূর্তে এসে কিভাবে আমরা আবার নিজেকে প্রস্তুত করব। আমরা যে সময় দেওয়ার কথা পড়ার টেবিলে, সেসময় দিতে হচ্ছে রাজপথে। কেন আমাদের সাথে এমন অন্যায় করা হচ্ছে। আমরা এই অন্যায় সিদ্ধান্ত মেনে নিব না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন জানাই, আপনি আমাদের মতো কোমলমতি শিক্ষার্থীদের স্বপ্নকে বাঁচান।
প্রসংগত, দেশের ১৯ টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এর অধীনে মানবিক, বাণিজ্য ও বিজ্ঞান- এই তিনটি বিষয়বস্তুর ওপর পরীক্ষা নেয়া হবে। গত ১ ডিসেম্বর উপাচার্যদের মতবিনিময় সভায় চূড়ান্তভাবে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য