Translate

আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কারের মনোনীতদের তালিকায় শিশু বার্তার সাংবাদিক প্রিয়াংকা


নিজস্ব প্রতিবেদক: শিশুদের নোবেল খ্যাত আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার ২০২১ এর জন্য মনোনীত হয়েছেন শিশু বার্তার সিরাজগঞ্জ জেলার শিশু সাংবাদিক প্রিয়াংকা ভদ্র। তাকে এ পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন দিয়ে নেদারল্যান্ড সরকারের পিচ রাইটস কমিটির কাছে সুপারিশ পাঠনো হয়েছে। শিশুদের জন্য এটি নোবেল পুরস্কার নামে পরিচিত।


প্রিয়াংকা ভদ্র সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের একজন শিক্ষার্থী। ১৬ বছর বয়সী এই কিশোরী তার বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের জন্য "লিঙ্গ বৈষম্য" টপিকে আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার ২০২১ এর জন্য মনোনীত হয়েছেন।

কিডর্স রাইটস ফাউন্ডেশনের ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, প্রিয়াংকা ভদ্র একজন শিশু সাংবাদিক, লেখক ও স্বেচ্ছাসেবক। তিনি শিশু ধর্ষণ, বাল্যবিবাহ বন্ধ এবং নারী ও শিশুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য বিভিন্ন লেখালেখি ও ভিডিও তৈরি করেছেন। তিনি হ্যালো বিডি নিউজ টোয়েন্টিফোর ও শিশু বার্তার একজন শিশু সাংবাদিক হিসেবে কাজ করছেন।

২০১৬ সাল থেকে প্রিয়াংকা ভদ্র যুক্ত আছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল চাইল্ড পার্লামেন্ট বিএনসিপির সাথে এবং বর্তমানে সে সিরাজগঞ্জ প্রদেশের ডেপুটি স্পিকার হিসেবে কাজ করছেন। ২০১৮ সাল থেকে প্রথমে শিশু সাংবাদিক এবং বর্তমানে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে যুক্ত আছেন ন্যাশনাল চাইল্ড টাস্ট ফোর্স এনসিটিএফ এর সাথে। এছাড়াও ২০১৭ সাল থেকে কিশোর গোয়েন্দা ম্যাগাজিন, ২০১৮ সাল থেকে ইউনিসেফ সমর্থিত হ্যালো বিডি নিউজ টোয়েন্টিফোর এবং শিশু বার্তার সাথে শিশু সাংবাদিক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন।

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশ রক্ষায় তিনি কাজ করেছেন। এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে যুক্ত হয়ে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন মানবিক কাজ করে যাচ্ছেন।

প্রিয়াংকার এই অর্জনে তার শিক্ষকগন ও পরিবারের সদস্যরা অনন্দিত। তার বাবা দীপক কুমার ভদ্র বলেন, ছোটবেলা থেকেই প্রিয়াংকা মানুষের প্রতি দরদী ছিল। অসহায় শিশুদের দেখলে তাদের সহযোগিতার জন্য এগিয়ে যেত। এখনও নারী ও শিশু অধিকার নিয়ে কাজ করে। তারই স্বীকৃতি স্বরূপ আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কারে মনোনীত হয়েছে। সবাই আমার মেয়ের জন্য আশীর্বাদ করবেন।

মা রিক্তা রানী সরকার বলেন, সারাদিন সে পড়ালেখা নিয়ে ব্যস্ত থাকে। আর পড়ালেখার ফাঁকে যখনই সে সময় পায় বিভিন্ন লেখালেখি, কুইজ প্রতিযোগিতা, বই পড়া ও বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড করে থাকে। আমরা পরিবার থেকে সবসময় তাকে সাপোর্ট করি।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার ২০২০ পেয়েছিল বাংলাদেশি কিশোর সাদাত রহমান। তার পূর্বের বছর এ পুরস্কার পেয়েছিল পাকিস্তানের নোবেল বিজয়ী তরুণী মালালা ইউসুফজাই।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ