Translate

সাইবার টিনসের সাথে হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজির সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কিশোর-কিশোরীদের সাইবার নিরাপত্তা প্রদানকারী সংস্থা সাইবার টিনস এর দেশব্যাপী এগিয়ে চলা কর্মকাণ্ডকে সহজ ও সুন্দর করতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা সদস্যদের ধাকা সহজে থাকা-খাওয়া, বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও কনফারেন্স সার্বিক সুযোগ সুবিধা প্রদানের মর্মে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে লাইফস্টাইল হোটেল বিডি লিমিটেডের সহপ্রতিষ্ঠান হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজি। রবিবার (২০ মার্চ) সন্ধ্যায়   রাজধানির গুলশান-২ এ অবস্থিত হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজির কনফারেন্স রুমে এই সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়।

সাইবার টিনস ফাউন্ডেশনের ইভেন্ট ডিরেক্টর ফারদিন ইসলামের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে সাইবার টিনস এর পক্ষে সাইবার টিনস ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও প্রেসিডেন্ট সাদাত রহমান, লিগ্যাল এডভাইজার জেমিমা আক্তার এবং হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজির পক্ষে ছিলেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহেদ এজাজ আহমেদ রাজন ও অন্নান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজির ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজন বলেন, কিশের-কিশোরীদের সাইবার হয়রানি বন্ধে, সাইবার নিরাপত্তার জন্য সাইবার টিনসের সদস্যরা যে মহতি উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে চলেছে তার সহযোগি হতে পেরে হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজি অত্যন্ত আনন্দিত। দেশের একটি বড় সমস্য সাইবার অপরাধ প্রতিকারের জন্য যে তরূন-তরূণীরাকাজ করে যাচ্ছে তাদের সকল কর্মকাণ্ডে হোটেলের পক্ষ থেকে যথাসম্ভব সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

এসময় সাইবার টিনস ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও প্রেসিডেন্ট সাদাত রহমান বলেন, হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজি আধুনিক, রুচিশীল ও উন্নত মানের হোটেল। যেখানে সাইবার টিনসে কর্মরত দেশের বিভিন্ন প্রান্তের সদস্যরা ঢাকায় এসে সহজে ও নিরাপত্তার সাথে আবাসন সুবিধা পাবেন। একইসাথে সাইবার টিনসের প্রতিনিয়ত এগিয়ে চলা ক্রমবর্ধমান কর্মকাণ্ডে সহযোগিতা প্রদানের জন্য হোটেল ট্রপিক্যাল ডেইজিপ প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। 

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সাইবার টিনসের মিডিয়া এন্ড পাবলিকেশন্স অফিসার দ্বীন মোহাম্মদ সাব্বির, হেল্প সেন্টার কো-অরডিনেটর মো: অনিক আলী, টিনস টক কো-অরডিনেটর এন. আর. বাঁধন, অফিস কো-অরডিনেটর সাকিব হাসান প্রমুখ। 

উল্লেখ্য, সাইবার টিনস শিশু-কিশোরদের ইন্টারনেটে সুরক্ষা প্রদনকারি একটি সংস্থা। এই সংস্থা কর্তৃক শিশুদের ইন্টারনেটে নিরাপত্তা প্রদান ও সাইবার বুলিং প্রতিরোধে কাজ করা হয়। কোনো শিশু অনলাইনে নিপীড়নের শিকার হলে তার অভিযোগের ভিত্তিতে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে তা সমাধানের জন্য কাজ করে সাইবার টিনস। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ